Freelance
Trending

আজকে আলোচনা করবো সিপিএ মার্কেটিং নিয়ে [নতুনদের জন্য পর্ব ০২]

গত পর্বে আলোচনা করেছিলাম সিপিএ মার্কেটিং এর ব্যাসিক নিয়ে আজকে সেই পর্বের দ্বিতীয় পার্ট দিলাম আশা করি কাজে লাগবে। যারা গত পর্বের টা মিস করেছেন তারা এখানে গিয়ে পড়ে নিতে পারেন।

বিগেনার হিসেবে সিপিএ মার্কেটিং শুরু করার জন্য কিছু টিপস

তাহলে আপনি এখন কিভাবে সিপিএ মার্কেটিং শুরু করবেন? শুরু করার জন্য অবশ্যই কিছু স্টেপ আপনাকে ফলো করতে হবে।

উপযুক্ত স্থান বেছে নিন

সিপিএ মার্কেটিং শুরু করার আগে আপনাকে প্রথমেই একটি উপযুক্ত স্থান বেছে নিতে হবে। আপনার উচিৎ সিপিএ মার্কেটিং এর ভালো স্থানগুলো সম্পর্কে রিসার্চ করে তারপর যেটি আপনার কাছে সহজ মনে হবে সেটি ফলো করা। আপনাকে অবশ্যই এই বিষয়ে ধারণা নিতে হবে। আপনি চাইলে এই সাইটগুলোতে ভিজিট করতে পারেন, ‘Affplus.com; ‘Odigger.com; এবং ‘OfferVault.com’।

সিপিএ নেটওয়ার্কে সাইন আপ করা

সিপিএ মার্কেটিং এর ক্ষেত্রেও আপনাকে অ্যাফিলিয়েট বা পাবলিশারের মতোই অ্যাপ্লিকেশন ফরম ফিল আপ করতে হবে। আপনাকে কিছু বেস্ট সিপিএ নেটওয়ার্ক এবং মার্কেটপ্লেস সম্পর্কে ধারণা নিতে হবে। আপনি চাইলে ‘AffPaying.com’ এই সাইটে ভিজিট করতে পারেন। এটি একটি অ্যাফিলিয়েট নেটওয়ার্ক রিভিউ সাইট। এই সাইট আপনাকে অ্যাফিলিয়েট নেটওয়ার্ক, পেমেন্ট ম্যাথড বা রেফারেল কমিশন সম্পর্কে অনেক ধারণা দিয়ে থাকবে। আপনি চাইলে শুধু সিপিএ নেটওয়ার্ক সম্পর্কেও সার্চ করতে পারেন।

আবার আপনি চাইলে ‘oDigger.com’ এই সাইটও ব্যবহার করতে পারেন, এখানেও অনেক রিভিও পাবেন সিপিএ নেটওয়ার্ক সম্পর্কে। আপনি যখন নেটওয়ার্ক রিভিও সম্পর্কে জানতে পারবেন, তখন আপনি নিজেই সিদ্ধান্ত নিতে পারবেন কোনটিতে আপনার জয়েন করা উচিত।

আমি এখানে আপনাদের সিপিএ মার্কেটিং নিয়ে সব কিছু বলতে পারিনি। লেখাটি বড় হয়ে যাওয়ায় আমি দ্বিতীয় পর্বে বাকি অংশ লিখেছি। ২য় পর্বটি পড়তে এখানে ক্লিক করুন। তবে আপনার যে বন্ধুরা সিপিএ মার্কেটিং শিখতে চায় বা জানতে আগ্রহী তাদের সাথে লেখাটি শেয়ার করতে ভুলবেন না কিন্তু।

সিপিএ মার্কেটিং এর নিশ :

আপনি চাইলে যে কোনো নিশ নিয়ে কাজ করে ভালো আয় করতে পারবেন না। তাই আপনাকে খুঁজে

নিতে হবে সবচেয়ে ভালো আয় করা যায় এমন সব নিশ। আমি আপনাদের সুবিধার জন্য এখানে টপ কয়েকটি নিশের নাম বলে দিচ্ছি জেনে রাখন:

  • মোবাইল অ্যাপস
  • ডেটিং
  • ওয়েট লস
  • ফিনান্স
  • ইনস্যুরেন্স
  • হাউজিং
  • জবস
  • সফটওয়্যার
  • বিজনেস
  • গেমিং
  • গ্যাম্বলিং

আপনার অ্যাকাউন্ট কিভবে এপ্রোভ করবেন এই সম্পর্কে কিছু টিপস নিচে দেয়া হলোঃ

সিপিএ মার্কেটিংয়ে কাজ করতে হলে আপনাকে অবশ্যই কোন না কোন সিপি নেটওয়ার্কে অ্যাকাউন্ট খুলতে হবে। আবার শুধু অ্যাকাউন্ট খুললেই যে আপনি কাজ পেয়ে যাবেন, কাড়ি কাড়ি টাকা আয় করে ফেলবেন, এমন নয়। কারণ, আপনার অ্যাকাউন্ট অ্যাপ্রুভালের ব্যাপার আছে, তাই আগে জানুন

কিভাবে অ্যাকাউন্ট সফলভাবে অ্যাপ্রুভ করবেন।

০১. সৎ থাকতে হবে:

এটি খুবই গুরুত্বপূর্ণ যে আপনি যখন ফরম ফিল আপ করবেন তখন আপনাকে সব সঠিক ইনর্ফমেশন দিতে হবে। যেমন, আপনার নাম, ঠিকানা, ইমেইল অ্যাড্রেস ইত্যাদি। সিপিএ নেটওয়ার্কগুলো সব সময় চায় ফেইক অ্যাকাউন্টগুলো ডিলিট করতে। তাই অবশ্যই ফেইক ইনর্ফমেশন দেয়া থেকে বিরত থাকুন।

০২. কি নিয়ে মার্কেটিং করতে চান সে সর্ম্পকে জানুন:

সিপিএ নেটওয়ার্কগুলোতে অনেক ধরনের নিশ বা কাজের ক্ষেত্র থেকে থাকে। আপনি আগে ঠিক করে নিতে হবে আপনি কি নিয়ে কাজ করতে চাচ্ছেন। এ-সব নিয়ে ধারণা পেতে হলে আপনাকে গুগলে সার্চ করতে হবে। দেখুন কোন কাজটি আপনারন জন্য উপযুক্ত মনে হয় বা কোন কাজ করলে আপনি বেশি টাকা আয় করতে পারবেন। সে কাজটি করার সিদ্ধান্ত নিন।

০৩. নিশ নির্বাচন করতে হবে:

আপনি যে বিষযের উপর কাজ করতে চান তার উপর র্নিভর করে নিশ ‍নির্বাচন করুন। তাহলে আপনার কাজের যেমন সুবিধা হবে তেমনি আপনি খুব সহজে আয়ের রাস্তা বের করতে পারবেন।

০৪. নিজের ওয়েবসাইট তৈরি করুন:

আপনার নিজের যদি কোনো ওয়েবসাইট থেকে থাকে, তাহলে তো ভালো। আর যদি না থাকে, তাহলে অবশ্যই আপনি একটি ওয়েবসাইট তৈরি করে নিন। এর কারণ হলো আপনার যদি নিজের একটা ওয়েবসাইট থাকে, তাহলে আপনি চাইলে আপনার নিজের ওয়েবসাইটেও মার্কেটিং করতে পারবেন। এবং আয় করতে পারবেন।

০৫. আপনি নতুন হলে জানাতে হবে:

আপনি যে কোনো সিপিএ নেটওয়ার্কেই অ্যাকাউন্ট সাইন আপ করেন না কেনো, আপনার অবশ্যই তাদেরকে জানানো উচিৎ যে আপনি নতুন র্মাকেটর নাকি এক্সপার্ট লেভেলের। কারণ এর উপর আপনার বিজনেসের অনেক কিছুই নির্ভর করে। তবে আপনাকে অবশ্যই বলে দিতে হবে আপনি একজন নতুন মার্কেটর। তাহলে তারা তার উপর ‍ভিক্তি করে আপনাকে কাজ ‍দিবে।

০৬. সিপিএ নেটওয়ার্ক ইন্টার্ভিউ দেওয়া:

এমন অনেক সিপিএ নেটওয়ার্ক আছে, যেখানে আপনি সাইন আপ করার পরের আপনাকে ইন্টার্ভিউ দিতে হবে। তখন অবশ্যই আপনি প্রতিটি প্রশ্নের উত্তর কনফিডেন্টের সাথে দিবেন। তারা আপনার সম্পর্কে, আপনার কাজ সম্পর্কে জানতে চাইবে। আসলে বুঝতে চাইবে আপনি কেমন বা কাজ করতে পারবেন কিনা। এমন ধরনের ইন্টার্ভিউ সব নেটওয়ার্কে হয় না, কিছু টপ সিপিএ নেটওয়ার্ক ছাড়া। বিগেনার হিসেবে আপনার এসব সিপিএ নেটওয়ার্কে অ্যাকাউন্ট না করাই ভালো।

০৭. অ্যাফিলিয়েট ম্যানেজারের কথা শুনতে হবে:

প্রত্যেক সিপিএ নেটওয়ার্কে সব মার্কেটারের জন্যই একজন করে অ্যাফিলিয়েট ম্যানেজার থাকে, যারা আপনাকে সব সময় সাহায্য করবে। তাদের কাছে আপনি আপনার সমস্যার কথা বলতে পারবেন। তবে অবশ্যই তাদের নেটওয়ার্ক বা ব্যক্তিগত বিষয়ে কোনো প্রশ্ন করা যাবে না। বিজেনেসের উপর প্রভাব ফেলবে। তাই বুঝে কাজ করবেন না।

০৮. নিজেকে সব সময় আপডেট রাখুন:

এখন দেখা যায় দিন দিন সিপিএ মার্কেটারের সংখ্যা বেড়ে চলেছে। তাই আপনার উচিৎ সব সময় নিজেকে আপডেট করা। সব সময় একই প্রোডাক্ট বা অফার নিয়ে কাজ করলে চলবে না। আপনাকে প্রতিদিন খুঁজ নিতে হবে কখন কোন অফার মানুষ বেশি চাচ্ছে। এছাড়াও জানার কোনো শেষ নেই। আমি আপনাদের সব কিছু বলতে পারিনি। আপনি গুগল, ইউটিউবে সার্চ করলে সিপিএ মার্কেটিং সম্পর্কে আরো অনেক কিছুই জানতে পারবেন।

সিপিএ মার্কেটিং এর আরো অন্যান্য বিষয় নিয়ে আমি আপনাদের জন্য লিখবো। তাই চোখ রাখুন মামুন্স ব্লগে আর আপনাদের মতামত কমেন্ট করে জানান। আজ এ পযর্ন্তই, ভাল থাকবেন। ভালো লাগলে শেয়ার করে সবাইকে জানার সুযোগ দিন। ধন্যবাদ সবাইকে।

লেখা ও রিসার্চ: এম এইচ মামুন

MH Mamun

{শেখাও}, {আর না হলে শেখো} {যদি চুপ চাপ থাকো} {তাহলে তোমার ফাঁকা খুলি দিয়ে কি হবে?}

Related Articles

Leave a Reply

Back to top button