Freelance
Trending

ফ্রিল্যান্সিং কি? সবাই কি ফ্রিল্যান্সার হতে পারে? কত টাকা আয় করা সম্ভব?

ধাপে ধাপে আপনার ৩ টি প্রশ্নেরই উত্তর দেবার চেষ্টা করছি।

ধরুন আমার বাড়ির ছাদে আমি ছাদ বাগান করতে চাই। আপনি সহ আরও কিছু মানুষ আছেন যারা এই ছাদ বাগানের কাজ করেন।

তো, আমি আপনাকে সহ আরও এক দুইজনকে ম্যাসেজ করে বললাম, আমার এই ছাদ বাগানের কথা। আর আপনি আমার কথায় রাজি হয়ে গেলেন।

আপনার সাথে আমার চুক্তি হলো আপনি ৫০০ ডলারে আমার এই ছাদ বাগান করে দেবেন, এবং আপনার সময় লাগবে ১০ দিন।

ঘটনা হচ্ছে, আপনি এই ১০ দিনের মধ্যে যে কোন দিন আমার বাড়ি আসতে পারেন, এসে কাজ করতে পারেন।

যেভাবেই করুন না কেন, আপনি যদি ১০ দিনের মধ্যে আমার ছাদ বানাগের কাজ শেষ করে দিতে পারেন তাহলে আমি আপনাকে আপনার এই ৫০০ ডলার দিয়ে দিব।

এই ধরনের ছোট ছোট মেয়াদী প্রজেক্ট গুলোকে আসলে ফ্রিল্যান্সিং বলা হয়। আগে এটা এভাবেই বাস্তব জীবনে হতো।

এখনো বাস্তব জীবনে হয়, তবে বিষয়টা সম্পুর্ন অনলাইন নির্ভর হয়ে গেছে।

যে কারণে, এখন ফ্রিল্যান্সিং বলতে মানুষ অনলাইনের কাজ করাকে বোঝায়।

সুতরাং, অনলাইনের যে কাজ গুলো আপনি আপনার ইচ্ছা মতো করতে পারছেন, ইচ্ছা হলে অর্ডার নিবেন, না হলে নিবেন না। কাজ নেবার পরে নির্দিষ্ট সময়ের মধ্যে করলেই আপনি পেমেন্ট পাবেন, ১০ টা – ৫ টা অফিসের ব্যাপার থাকে না, এমন ধরনের কাজ গুলোকে ফ্রিল্যান্সিং বলা হয়!

সবাই ফ্রিল্যান্সার হতে পারে কিনা?

আপনার যদি এই ছাদ বাগান করার মতো দক্ষতা থেকে থাকে তাহলে আপনি এই কাজ করতে পারবেন।

এখানে, ছাদ বাগানের কাজ বলতে আমি আপনার দক্ষতাকে বুঝিয়েছি।
অর্থাৎ আপনার যদি অনলাইন ভিত্তিক যেকোন ধরনের কাজ করার সক্ষমতা বা দক্ষতা থেকে থাকে তাহলে আপনি এই ফ্রিল্যান্সিং করতে পারবেন।

এই ধরনের দক্ষতার মধ্যে রয়েছে,

  • ওয়েবসাইট তৈরি (ওয়েব ডেভেলপমেন্ট)
  • বিভিন্ন ধরনের ডিজাইন (গ্রাফিক্স ডিজাইন)
  • মার্কেটিং করার দক্ষতা (ডিজিটাল মার্কেটিং)
  • কন্টেন্ট রাইটিং
  • ভিডিও এডিটিং
  • এনিমেশন ক্রিয়েশন, ইত্যাদি

সুতরাং, আপনি যদি এই ধরনের কাজ গুলো করতে পারেন, তাহলে আপনি ফ্রিল্যান্সিং করতে পারবেন। আর যদি না থাকে তাহলে করতে পারবেন না।

যারা জানেন না তাদের বলে রাখি, ফ্রিল্যান্সিং খুবই সহজ, বেকার ছেলেপেলে করে, এটা কিছুই না, শুধু এড ক্লিক করলেই টাকা পাওয়া যায়, ওয়েবসাইটে ইমেইল দিলে টাকা পাওয়া যায়, —- ফ্রিল্যান্সিং বলতে যদি এসব ধারনা আপনার মাথায় আসে তাহলে আপনি বোকার স্বর্গে বাস করছেন।

কেননা, অন্যান্য যেকোন প্রফেশনাল চাকরির থেকে ফ্রিল্যান্সিং কোন অংশে কম নয়, আর অন্যান্য যেকোন চাকরি থেকে এখানে আপনাকে অনেক বেশি দক্ষতার প্রমাণ দিতে হবে।

তবে ফ্রিল্যান্সিং যেকোন বয়সেই করতে পারেন, যেকোন লিঙ্গের মানুষেরা করতে পারেন, আর এটা করার জন্য কোন সার্টিফিকেট লাগে না, তাই যে কেউ এই দক্ষতা গুলো অর্জন করে ফ্রিল্যান্সিং করতে পারেন।

এই দক্ষতা গুলো অর্জন করবেন কিভাবে?

ইউটিউবে প্রচুর টিউটোরিয়াল পাবেন, পাশাপাশি অনেক ট্রেইনিং সেন্টার রয়েছে।
আপনার যদি ভালো ধারনা থাকে তাহলে YouTube থেকে করতে পারেন, তবে একসাথে সকল রিসোর্স পাওয়া একটু কঠিন। সময় অনেক বেশি লাগে।


যদি দ্রুত শিখে মার্কেটপ্লেসে আসতে চান, তাহলে যেকোন একটা আলো ট্রেইনিং সেন্টারে ভর্তি হতে পারেন, তবে অবশ্যই একটা ভালো ট্রেইনিং সেন্টারে ভর্তি হবেন।
আমার নিজেরও একটি ট্রেইনিং সেন্টার আছে, যেখানে আমি লাইভ ক্লাসের মাধ্যমে এগুলো শিখিয়ে থাকি, চাইলে আমার কোর্সেও ভর্তি হতে পারেন।

কেমন উপার্জন করা যায়?

আপনার যদি দক্ষতা আর ধৈর্য থাকে তাহলে ফ্রিল্যান্সিং করে ভাই আসলেই বেশ ভালো উপার্জন করা সম্ভব।
আর এটা এমন একটা সেক্টর যেখানে আপনি প্রতি বছর আগের বছর থেকে বেশি উপার্জন করতে পারবেন।
বাংলাদেশে অনেক ফ্রিল্যান্সার আছেন, যারা মাসে ১০ লক্ষের উপরে উপার্জন করে থাকেন।


আমার বর্তমান আর্নিং এর কথা বলছি না, তবে আমি নিজে প্রথম বছরে মাসিক ৮০,০০০ করে উপার্জন করেছি।
আর স্বাভাবিক ভাবেই এরপর থেকে বাড়ছে!


যদিও বা এই প্রথম বছরে ৮০ হাজার উপার্জনের আগে আমার ২ বছর সময় লেগেছে এই সবকিছু শিখে মার্কেটপ্লেসে আসতে।
তবে ভালো লাগার ব্যাপার হচ্ছে, তখন আমি সবেমাত্র HSC পাশ করেছি।


সুতরাং, একটা HSC পাশ করা ছেলের মাসিক বেতন ৮০,০০০ টাকা!
অবশ্যই খুব একটা খারাপ নয়! (তবে এর পিছনে আমার করা পরিশ্রম অবশ্যই ৮০,০০০ এর সমতুল্য, এটা অবশ্যই মনে রাখবেন।)

কষ্ট করে পড়ার জন্য আপনাকে ধন্যবাদ । ফ্রিল্যান্সিং সম্পর্কে কোন প্রশ্ন থাকলে আমাকে ফেসবুকে নক দিতে পারেন ।

লিখেছেনঃ তমাল দেবনাথ এবং এম এইচ মামুন

MH Mamun

কিচ্ছু জানিনে, কিচ্ছু পারিনে । ভালো ঠেকে নারে কার্তিক।

Related Articles

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

Back to top button