Freelance

ওয়েব ডিজাইন শিখুন, ক্যারিয়ার গড়ুন নতুনদের জন্য ।

মনে করুণ আপনি ওয়েব ডিজাইন শিখতে চান এবং ফ্রিল্যান্সিং করে আর্ন করতে চান। ওকে ভাল কথা । তাহলে কি কি করতে হবে বা কি কি শিখতে হবে ওয়েব ডিজাইনের জন্য সেগুলো তো জানার দরকার তাইনা? তাহলে জেনে নেই চলুন?

ওয়েব ডিজাইন করে আমার লাভ কি?

ওয়েব ডিজাইন শিখুন, ক্যারিয়ার গড়ুন নতুনদের জন্য ।

আপনাকে একজন ৫০০০৳ দিবে তার জন্য একটি ওয়েবসাইট বানিয়ে দিতে। ৫-৬ ঘন্টা কাজ করে আপনি ৫০০০৳ পেয়ে যাবেন। এতে আপনার লাভ আছে কি? 😛 আসলে আপনি ওয়েবসাইট বানাবেন আপনার ক্লায়েন্ট এর জন্য। আপনাকে বিভিন্ন পারিশ্রমিক এর মুল্যে ওয়েব ডিজাইন করতে হবে। এতে আপনার আয় হচ্ছে। আর এখানে লাভ বলতে কিছু নেই। আপনি ভালো আয় করতে পারবেন, স্বাবলম্বী হতে পারবেন। কারো উপর নির্ভর করা লাগবে না। এটাই আপনার লাভ। বুঝেন নাই ব্যাপারটা?

আপনাকে কি জানতে হবে?

ওয়েব ডিজাইন শিখুন, ক্যারিয়ার গড়ুন নতুনদের জন্য ।

এইচটিএমএল : এইটা হলো মার্ক আপ ল্যাংগুয়েজ, প্রোগ্রামিং ল্যাংগুয়েজ নয়, শেখা খুব সহজ।

মার্ক আপ বুঝেন নাই তাইনা? ক্লিয়ার করি।

মনে করেন আপনার ব্লগ সাইট আছে সেটাতে আপনি পোস্ট করবেন । পোস্ট করার জন্য আপনাকে কিছু জিনিসের দিকে খেয়াল রাখতে হবে। সেগুলা হলো, টাইটেল, হেডিং, প্যারাগ্রাফ, টেবিল ইত্যাদি ইত্যাদি।

সিএসএস : এটাও মার্ক আপ ল্যাংগুয়েজ । এইটার পূর্নরুপ হলো “ক্যাসকেডিং স্টাইল শীট” ।

বুঝেন নাই? আচ্ছা আরেক্টু ক্লিয়ার করি । ধরুন এইচটিএমল ডকুমেন্টের যেকোন এলিমেন্টকে স্টাইলিং বা একটা রুপ দিতে চান । একটা প্যারাগ্রাফ (<p></p>) বা হেডিং (<h1></h1>) বা যেকোন এলিমেন্ট কে ধরুন রং করতে চান, ফন্ট বড় ছোট করতে হবে, অবস্থান এক দিক থেকে অন্যদিকে নিতে হবে, ব্যাকগ্রাউন্ড রং বদলাতে হবে এরুপ শত ধরনের স্টাইল পরিবর্তন সিএসএস দিয়ে করা হয়। বিশেষ করে লেআউট তৈরীর জন্য সিএসএস সবচেয়ে বেশি জরুরি।

ফটোশপ : এখানে যে মুল কাজটি শিখতে হবে তাহল পিএসডি থেকে এইচটিএমএল টেমপ্লেট (PSD to HTML) বানানো এছাড়া ব্যানার, বাটন, এনিমেশন তৈরী করা এসব জানতে হবে।

এটা মোটামুটি সবাই জানে। তাই বেশি কিছু বললাম না । অতিরিক্ত হিসেবে ফ্ল্যাশ দিয়ে এনিমেশন তৈরী করা শিখতে পারেন। যদি পারেন সেই ক্ষেত্রে শিখে নেবেন। না পারলে নাই।

এবার প্রশ্ন হলো কি ভাবে ওয়েব ডিজাইন শিখবো? বা কোথায় গিয়ে ওয়েব ডিজাইন শিখবো?

ওয়েব ডিজাইন শিখুন, ক্যারিয়ার গড়ুন নতুনদের জন্য ।

আমি বলছি কোথায় গিয়ে শিখতে হবে। আমি শেখাতে পারবো না। কিন্তু রাস্তা দেখিয়ে দিতে পারবো । সেই রাস্তায় গেলেই আপনি পারবেন এটা আশা করি।

বিভিন্ন ওয়েব সাইটের টিউটোরিয়াল থেকে ওয়েব ডিজাইন ভালভাবে শিখতে পারবেন। বাংলা ইংরেজি অনেক সাইট আছে এসব শেখার।ওয়েব ডিজাইন শেখা বেশ সহজ, কয়েকমাসেই শেখা সম্ভব।ভালভাবে শিখতে পারলে ওয়েব ডিজাইনের উপর প্রচুর চাকরি এবং ফ্রিল্যান্সিং এ হাজার হাজার কাজ পাওয়া যায়। মনে লাড্ডু ফুটে গেছে এতোক্ষণে তাইনা? সামনে আরো আছে থাকুন সাথেই।

এবার চলেন জেনে নেওয়া যাক ওয়েব ডেভেলপমেন্ট কি?

ওয়েব ডিজাইন শিখুন, ক্যারিয়ার গড়ুন নতুনদের জন্য ।

ওয়েব ডেভেলপমেন্ট হচ্ছে ওয়েবসাইটের জন্য এপ্লিকেশন তৈরী করা। উপরে যে এপ্লিকেশনগুলির উল্লেখ করেছি এধরনের আরো হাজারো এপ্লিকেশন আছে, ওয়েব ডেভেলপারকে এসব এপ্লিকেশন তৈরী করতে হবে। যদি ফ্রিল্যান্সিং করেন তাহলে ক্লাইন্টের চাহিদা অনুযায়ী এমনও এপ্লিকেশন তৈরী করা লাগতে পারে যার অস্তিত্ব পৃথিবীতে নেই। এই বিষয়টি বেশি চ্যালেন্জিং এবং ডাইনামিক। অর্থ্যাৎ আপনাকে এপ্লিকেশন ডিজাইন করতে হবে। তাই ওয়েব ডেভেলপমেন্ট কে আরও সুনির্দিষ্ট করে বলা যায় ওয়েব এপ্লিকেশন ডেভেলপমেন্ট। এবার তো কঠিন কঠিন মনে হচ্ছে তাইনা ভাই? সমস্যা নাই । ভয় পেলেই লস । লেগে থাকুন হবেই। আচ্ছা এর পরে চলে যাচ্ছি।

ওয়েব ডেভেলপমেন্ট শিখতে যেসব জিনিস জানতে হবে!

এইচটিএমএল, সিএসএস, ক্লাইন্ট সাইড প্রোগ্রামিং ল্যাংগুয়েজ যেমন

জাভাস্ক্রিপ্ট : এটাকে ব্রাউজার স্ক্রিপ্টিং ও বলা হয় অর্থ্যাৎ এই ল্যাংগুয়েজ দিয়ে লেখা কোড শুধু কোন ব্রাউজারে (যেমন ইন্টারনেট এক্সপ্লোরার, মজিলা ফায়ারফক্স, অপেরা, গুগল ) কাজ করবে।জাভাস্ক্রিপ্টের ফ্রেমওয়ার্ক দিয়ে দ্রুত কাজ করা যায়। চিন্তা করবেন না শেখার সহজ প্রোসেস আমি বলে দেবো ।

সার্ভার সাইড প্রোগ্রামিং ল্যাংগুয়েজ যেমন পিএইচপি : এটাকে সার্ভার সাইড স্ক্রিপ্টিং বলা হয় কারন এই ল্যাংগুয়েজ দিয়ে লেখা কোডগুলি শুধু সার্ভারে এক্সিকিউট হয়। মাথা ঠান্ডা রাখুন ক্লিয়ার করবো আমি ।

ডেটাবেস : পিএইচপি দিয়ে কিভাবে ডেটাবেস সংযোগ করতে হয়, এসকিউয়েল দিয়ে ডেটাবেস বানানো অর্থ্যাৎ ডেটাবেস ডিজাইন জানতে হবে কারন এখন যেকোন ডাইনামিক সাইটের ডেটাবেস আছে অথবা বলতে পারেন ডেটাবেস থাকতেই হয়।

পিএইচপি এর যেকোন একটা ফ্রেমওয়ার্ক যেমন কোডইগনাইটার : (আরও আছে যেমন কেক পিএইচপি, জেন্ড ফ্রেমওয়ার্ক, সিমফনি, ওয়াই আইআই, কোহানা ইত্যাদি একটা শিখলেই চলবে) : কোন ফ্রেমওয়ার্ক ছাড়াও ওয়েব এপ্লিকেশন তৈরী করতে পারবেন তবে এতে বেশি সময় লাগবে এবং বেশি কোড লিখতে হবে। আবার চিন্তায় ফেলে দিলাম? কিছু পেতে হলে কিছু দিতে হয় বুঝেন নাই?  সর্বশেষ যেটা লাগে সেটা হলো  এক্সএমএল  API, ছোটখাট ডেটা স্টোরিং ইত্যাদির জন্য এক্সএমএল লাগে।

এখন বলি কিভাবে শিখবেন ওয়েব ডেভেলপমেন্ট?

বাংলা ইংরেজি অনেক সাইট আছে এসবের টিউটোরিয়াল থেকে শিখতে পারবেন। এছাড়া Wrox বা Apress পাবলিকেশনের অনেক ভাল ভাল বই আছে সেগুলির সাহায্য নিতে হবে। ওয়েব ডেভেলপমেন্ট শেখার সবচেয়ে কার্যকরী কৌশলটি হল “বসে যান এবং একটা প্রজেক্ট তৈরী করুন” হতে পারে একটা ফোরাম, ব্লগ, ইউজার ম্যানেজমেন্ট সিস্টেম বা এই ধরনের কোন প্রজেক্ট। raw PHP দিয়ে করুন। এরপর সিএমএস বা ফ্রেমওয়ার্ক ডেভেলপমেন্টে যান।

ওয়েব ডেভেলপমেন্ট শিখতে অনেক সময় লাগবে, শেখা কঠিন এবং প্রচুর ধৈর্য্য সাথে আগ্রহ লাগবে।চাকরি ক্ষেত্রে বা ফ্রিল্যান্সিং এ ওয়েব ডেভেলপারের চাহিদা আকাশছোয়া।

সব শেষে একটা কথা বলি, জ্ঞানি মানুষেরা বিস্তারিত চিন্তা করে। তাই আমিও মনে করি আপনার জ্ঞান পরিধি অনেক। তাই যেভাবে পারেন কষ্ট হলেও এইগুলা শিখুন অনেক কাজে লাগবে। এখন থেকেই চিন্তা করেন। আগামীতে আপনার অবস্থা কোথায় দেখতে চান? তাহলে আর বসে বসে সময় নষ্ট করতে হবে না ।

তাহলে আজকের মত এখানেই থাক? আগামীতে আরো কিছু ভাল জিনিস নিয়ে হাজির হবো ইনশাহ আল্লাহ । ভাল থাকুন ।

MH Mamun

{শেখাও}, {আর না হলে শেখো} {যদি চুপ চাপ থাকো} {তাহলে তোমার ফাঁকা খুলি দিয়ে কি হবে?}

Related Articles

Leave a Reply

Back to top button